ঢাকা ০২:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :

পারমাণবিক যুগে প্রবেশ করলো বাংলাদেশ

স্বাধীনবাংলা, ডেস্ক নিউজঃ
  • প্রকাশের সময় : ০৮:২৪:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ১২৪ বার পঠিত
সংবাদটি শেয়ার করুন :

স্বাধীনবাংলা, ডেস্ক নিউজঃ

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য জ্বালানি ইউরেনিয়াম প্রকল্প এলাকায় পৌঁছেছে। কড়া নিরাপত্তার মাধ্যমে এই জ্বালানি শুক্রবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রূপপুরে আনা হয়। প্রকল্প পরিচালক ড. মো. শৌকত আকবর জানান, সব পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষ করে ইউরেনিয়াম বিশেষভাবে রূপপুরে সংরক্ষণ করা হবে। বিজ্ঞানমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান বলেছেন, এর ফলে পারমাণবিক যুগে প্রবেশ করলো বাংলাদেশ।

এই উচ্ছ্বাস বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে বাংলাদেশকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার। অকৃত্রিম বন্ধু রাশিয়ার হাত ধরে বিশ্বের বুকে এখন বিস্ময়ের নাম রূপপুর। নানা চড়াই উৎরাই আর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে, ফ্রেশ নিউক্লিয়ার ফুয়েল এলো দেশের প্রথম পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্র এলাকায়।

বৃহস্পতিবার বিকালে রাশিয়ার সাইবেরিয়া অঞ্চল থেকে ইউরেনিয়ামের প্রথম চালানবাহী বিমান ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবতরণ করে। শুক্রবার ভোরে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ওই জ্বালানি রূপপুরে পৌঁছে দেয় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে বিশেষ বাহিনী।

রাশিয়ার ঋণ ও কারিগরি সহায়তায় পাবনার রূপপুরে নির্মাণ করা হচ্ছে, দুই ইউনিটের এই পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র। এর উৎপাদন ক্ষমতা ২ হাজার ৪শ’ মেগাওয়াট। চুক্তি অনুযায়ী বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করে দেওয়ার পাশাপাশি এর জ্বালানি ইউরেনিয়াম সরবরাহ করবে রাশিয়া। প্রথম ব্যাচের জ্বালানি আসার পর বিজ্ঞানমন্ত্রী বলছেন, এর ফলে পারমাণবিক যুগে প্রবেশ করলো বাংলাদেশ।

রূপপুরের দুটি ইউনিটের মধ্য একটির নির্মাণ কাজ পুরোটাই শেষ করেছে পরমাণু শক্তি কমিশন ও রুশ ঠিকাদার এটমসট্রয় এক্সপোর্ট। অন্যটির কাজও শেষ পর্যায়ে। যে জ্বালানি এসেছে তা প্রথম ইউনিটে লোড করা হবে এ বছরের শেষে বা আগামী বছরের শুরুতে। তখন থেকেই পরীক্ষামূলক উৎপাদন শুরু করবে রূপপুর।

পরমাণু শক্তি কমিশনের সূত্রগুলো বলছে, সব ঠিক থাকলে আগামী বছরের মাঝামাঝিতে পুরোদমে একটি ইউনিটের ১ হাজার ২শ’ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যুক্ত হবে জাতীয় গ্রিডে।

 

এসবিএন

ট্যাগস :

পারমাণবিক যুগে প্রবেশ করলো বাংলাদেশ

প্রকাশের সময় : ০৮:২৪:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩
সংবাদটি শেয়ার করুন :

স্বাধীনবাংলা, ডেস্ক নিউজঃ

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য জ্বালানি ইউরেনিয়াম প্রকল্প এলাকায় পৌঁছেছে। কড়া নিরাপত্তার মাধ্যমে এই জ্বালানি শুক্রবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রূপপুরে আনা হয়। প্রকল্প পরিচালক ড. মো. শৌকত আকবর জানান, সব পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষ করে ইউরেনিয়াম বিশেষভাবে রূপপুরে সংরক্ষণ করা হবে। বিজ্ঞানমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান বলেছেন, এর ফলে পারমাণবিক যুগে প্রবেশ করলো বাংলাদেশ।

এই উচ্ছ্বাস বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে বাংলাদেশকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার। অকৃত্রিম বন্ধু রাশিয়ার হাত ধরে বিশ্বের বুকে এখন বিস্ময়ের নাম রূপপুর। নানা চড়াই উৎরাই আর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে, ফ্রেশ নিউক্লিয়ার ফুয়েল এলো দেশের প্রথম পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্র এলাকায়।

বৃহস্পতিবার বিকালে রাশিয়ার সাইবেরিয়া অঞ্চল থেকে ইউরেনিয়ামের প্রথম চালানবাহী বিমান ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবতরণ করে। শুক্রবার ভোরে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ওই জ্বালানি রূপপুরে পৌঁছে দেয় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে বিশেষ বাহিনী।

রাশিয়ার ঋণ ও কারিগরি সহায়তায় পাবনার রূপপুরে নির্মাণ করা হচ্ছে, দুই ইউনিটের এই পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র। এর উৎপাদন ক্ষমতা ২ হাজার ৪শ’ মেগাওয়াট। চুক্তি অনুযায়ী বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করে দেওয়ার পাশাপাশি এর জ্বালানি ইউরেনিয়াম সরবরাহ করবে রাশিয়া। প্রথম ব্যাচের জ্বালানি আসার পর বিজ্ঞানমন্ত্রী বলছেন, এর ফলে পারমাণবিক যুগে প্রবেশ করলো বাংলাদেশ।

রূপপুরের দুটি ইউনিটের মধ্য একটির নির্মাণ কাজ পুরোটাই শেষ করেছে পরমাণু শক্তি কমিশন ও রুশ ঠিকাদার এটমসট্রয় এক্সপোর্ট। অন্যটির কাজও শেষ পর্যায়ে। যে জ্বালানি এসেছে তা প্রথম ইউনিটে লোড করা হবে এ বছরের শেষে বা আগামী বছরের শুরুতে। তখন থেকেই পরীক্ষামূলক উৎপাদন শুরু করবে রূপপুর।

পরমাণু শক্তি কমিশনের সূত্রগুলো বলছে, সব ঠিক থাকলে আগামী বছরের মাঝামাঝিতে পুরোদমে একটি ইউনিটের ১ হাজার ২শ’ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যুক্ত হবে জাতীয় গ্রিডে।

 

এসবিএন